ইতালিতে উচ্চশিক্ষা

ইতালিতে উচ্চশিক্ষা

উচ্চ মানের একাডেমিক প্রোগ্রাম এবং গবেষণার জন্য উন্নত সুযোগ-সুবিধা প্রদান করে বিধায় উচ্চশিক্ষা গ্রহণের জন্য ইতালির বিশ্ববিদ্যালয়গুলো আন্তর্জাতিক শিক্ষার্থীদের আগ্রহের শীর্ষে। যদিও ইতালিতে টিউশন ফি ও থাকা-খাওয়া বাবদ খরচ ইউরোপিয়ান অন্যান্য দেশগুলোর তুলনায় তুলনামূলক কম, কিন্তু বাংলাদেশের আর্থ-সামাজিক প্রেক্ষাপটে তো এই খরচ কিছুটা বেশিই মনে হবে। তাই পরিবারের প্রতি এত অর্থভার বহন করার চাপ না বাড়িয়ে ইতালিতে উচ্চশিক্ষা গ্রহণের জন্য যোগাড় করতে হবে স্কলারশিপ। তাই আজকের এই ভিডিও তে আমি আপনাদের সাথে আলোচনা করব, কি ধরনের স্কলারশিপ নিয়ে আপনি উচ্চশিক্ষার জন্য ইতালিতে যেতে পারেন, কি কি ডকুমেন্টস দরকার, কি ধরনের যোগ্যতা আপনার থাকা লাগবে আর ভিসা আবেদনের জন্য নিয়মাবলী সহ ইতালিতে উচ্চশিক্ষা ও স্ক্লারশিপ নিয়ে যাবতীয় বিষয়াদি। তাই আমার সাথেই থাকুন।

ইতালিয়ান ডিগ্রীসমূহ ও আবেদনের সময়কাল 

ব্যাচেলর, মাস্টার্স, পিএইচডি, পোস্ট ডক্টোরাল সহ প্রায় সকল ধরণের প্রোগ্রামেই বাংলাদেশী শিক্ষার্থীরা ইতালিতে পড়াশোনার জন্য পাড়ি জমাচ্ছে। মূলত ব্যাচেলর ডিগ্রী বা আন্ডারগ্র্যাজুয়েট প্রোগ্রামের ক্ষেত্রে স্কলারশিপ সহ অন্যান্য সুযোগ-সুবিধা গ্র্যাজ্যুয়েট প্রোগ্রামের চাইতে অনেকাংশে কম। আর এই প্রোগ্রামগুলোর ক্ষেত্রে আমাদের দেশের মতোই সময় লাগে। ব্যাচেলর ডিগ্রী এর জন্য তিন থেকে চার বছর, মাস্টার্স ডিগ্রী এর জন্য দেড় থেকে দুই বছর আর পিএইচডি প্রোগ্রামের জন্য চার থেকে ছয় বছর সময় লাগে সাধারণত। ইংরেজি ও ইতালীয় উভয় ভাষায় এই কোর্স বা প্রোগ্রাম গুলো পাবেন। 

ইতালির বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে ঐ কোর্সগুলোর ক্ষেত্রে সেপ্টেম্বরের মাঝামাঝি সময়ে বা অক্টোবরের শুরুর দিকে প্রথম সেমিস্টার শুরু হয়। আর ঐ সেমিস্টার শেষ হয় গিয়ে জানুয়ারী বা ফেব্রুয়ারী মাসে। আর ফেব্রুয়ারী মাসে আবার দ্বিতীয় সেমিস্টার শুরু হয় এবং জূলাই মাসে শেষ হয়। তাই যেহেতু বিশ্ববিদ্যালয়গুলো বছরে দুইটি কোর্স অফার করা হয়ে থাকে তাই বছরে সাধারণত দুই বার আবেদন এর সময়কাল থাকে। 

ইতালিতে উচ্চশিক্ষা কোর্স নির্বাচন

ইতালিতে মোট  ৯০টি উচ্চশিক্ষা প্রদানকারী প্রতিষ্ঠান রয়েছে। তম্মধ্যে সরকারি বিশ্ববিদ্যালয় রয়েছে ৫৮ টি আর বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় আছে ১৭ টি। বিশ্ববিদ্যালয়গুলো ছাড়াও রয়েছে পোস্টগ্র্যাজুয়েট সেন্টার, পলিটেকনিক ও অন্যান্য উচ্চশিক্ষা প্রদানকারী প্রতিষ্ঠান। ইতালিতে University of Bologna (UNIBO) এর মতো যেমন বিশ্বের অন্যতম প্রাচীন বিশ্ববিদ্যালয় রয়েছে, ঠিক তেমনি Sant’Anna School of Advanced Studies (SSSA / Scuola Superiore Sant’Anna de Pisa), Scuola Normale Superiore (La Normale), Sapienza University of Rome (Sapienza),  University of Padua (UNIPD), Vita-Salute San Raffaele University (UniSR), University of Trento (UniTrento),  University of Milan (UniMi / La Statale), University of Milano-Bicocca (Bicocca / UNIMIB), Politecnico di Milano (PoliMi) এর মতো সেরা বিশ্ববিদ্যালয়গুলোও রয়েছে। আর ইতালিতে উচ্চশিক্ষা গ্রহণের জন্য সেরা কোর্স বা ডিগ্রীসমূহ হলোঃ Business & Management, Hospitality & Tourism, Social Science & Humanities, Fashion Styling and Communication, Graphic Design, Bioinformatics, Sustainable Engineering, Data Analytics। ইতালির বিশ্ববিদ্যালয়গুলো এছাড়াও আরো অনেক কোর্স অফার করে থাকে, যেগুলোর চাহিদা চাকুরীবাজারে অনেক। সেরা বিশ্ববিদ্যালয়, সেরা কোর্স সম্পর্কে তো জানলেন, এখন আপনার দায়িত্ব হচ্ছে বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর ওয়েবসাইটগুলো ঘুরে ঘুরে দেখা। আর আপনার পছন্দের কোর্সটির জন্য সেরা বিশ্ববিদ্যালয়গুলো খুঁজে বের করে, ঐ কোর্সে ঐ বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ার জন্য আপনার করণীয় কি খুঁজে বের করুন। 

টিউশন ফি ও অন্যান্য খরচ

ইতালির সরকারি বিশ্ববিদ্যালয় বা প্রতিষ্ঠানে সাধারণত ব্যাচেলর, মাস্টার্স বা পিএইচডি প্রোগ্রামের ক্ষেত্রে টিউশন ফি গড়ে প্রতি বছরে ১০০০ থেকে ৫০০০ ইউএস ডলার পর্যন্ত হয়ে থাকে। আর বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে এই একই প্রোগ্রামের ক্ষেত্রে আন্তর্জাতিক শিক্ষার্থীদের গড়ে প্রতিবছরে টিউশন ফি বাবদ ৭০০০ থেকে ২৪০০০ ইউএস ডলার পর্যন্ত খরচ হয়ে থাকে। এছাড়াও সেমিস্টার ফি সহ আরো কিছু আনুষাংগিক খরচ হয়ে থাকে। আর নন ইউরোপিয়ানদের ক্ষেত্রে কিছু প্রোগ্রাম বা কোর্সে টিউশন ফি আরো বেশিও হতে পারে। 

আর ইতালিতে একজন শিক্ষার্থী হিসেবে আপনার মাসে খরচ হবে ৯০০ থেকে ১৫০০ ইউএস ডলার পর্যন্ত। এক্ষেত্রে বাসস্থান বাবদ মাসে খরচ হতে পারে ৩০০ থেকে ৮০০ ইউএস ডলার পর্যন্ত (আফসোসের ব্যাপার হচ্ছে ইতালির বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে আবাসন ব্যবস্থা নেই), আর যাতায়াত বাবদ মাসে খরচ হতে পারে ৩০ থেকে ৫০ ইউএস ডলারের মতো। তবে এই খরচ সম্পূর্ণটাই আপনার নিজের উপর আর কোন শহরে থাকবেন তার উপর নির্ভর করে। 

স্কলারশিপ ও ফান্ডিং

টিউশন ফি ও খরচ সম্পর্কে তো জানলেন। এত এত টিউশন ফি ও খরচ যাতে আপনাকে বহন করতে না হয়, তাই যোগাড় করতে হবে স্কলারশিপ। ব্যাচেলর প্রোগ্রামে ইতালিতে স্বভাবতই মাস্টার্স এবং পিএইচডি প্রোগ্রামের তুলনায় স্কলারশিপ অনেকটা কম। তবে মাস্টার্স এবং পিএইচডি প্রোগ্রামের ক্ষেত্রে আন্তর্জাতিক শিক্ষার্থীদের জন্য ইতালি সরকারের তরফ থেকে যেমন বিভিন্ন স্কলারশিপ দেওয়া হয়, ঠিক তেমনি বিশ্ববিদ্যালয় বা গ্র্যাজুয়েট স্কুল, বিভিন্ন আন্তর্জাতিক সংগঠন, এনজিও গুলোর তরফ থেকেও অনেক স্কলারশিপ দেওয়া হয়। The Italian Government Scholarships for Foreign Students, University of Bologna Study Grants for International Students, Merit and Bocconi International Awards, Politecnico International Scholarships, Scuola Normale Superiore Ph.D. Scholarships সহ আরো প্রায় তিন শতাধিক স্কলারশিপ ইতালিতে উচ্চশিক্ষা গ্রহণে আগ্রহী শিক্ষার্থীদের প্রতিবছর দেওয়া হয়। এই সকল স্কলারশিপগুলোর কোনোটির ক্ষেত্রে আপনাকে ফুল ফান্ডিং এ পড়ালেখার সুযোগ পেতে পারেন। আবার কোনোটির ক্ষেত্রে আপনি পার্শিয়াল ফান্ডিং এ অর্থাৎপড়ালেখার খরচের একটা কিছুটা বহন করতে হবে এমন শর্তে পড়ালেখা করার সুযোগ পেতে পারেন। এছাড়াও আপনি রিসার্চ এসিস্টেন্ট কিংবা টিচার্স এসিস্টেন্ট হিসেবে এসিস্টেন্টশিপ ম্যানেজ করে ফান্ডিং বা গ্রান্ট নিয়ে পড়াশোনা করতে পারেন ইতালিতে। এক্ষেত্রে রিসার্চ এসিস্টেন্ট কিংবা টিসার্চ এসিস্টেন্ট হিসেবে কাজগুলো কোনো প্রফেসরের অধীনে করতে হবে। আর এই প্রফেসর খুঁজে বের করতে হলে  আপনার গবেষনা ক্ষেত্রের সাথে মিলে এমন প্রফেসরদের ওয়েবসাইট, ডিপার্টমেন্টের ওয়েবসাইট, ফান্ডিং এজেন্সির সাইটগুলো একটু ঘাটাঘাটি করতে হবে। অতঃপর ই-মেইলের মাধ্যে আপনার আগ্রহ ও দক্ষতা উপস্থাপন করে তাঁর সাথে যোগাযোগ করে ফান্ড ম্যানেজ করার চেষ্টা করতে হবে। 

প্রয়োজনীয় ডকুমেন্টস এবং যোগ্যতা 

ইতালিয়ান বিশ্ববিদ্যালয়গুলো স্বায়ত্বশাসিত, তাই বিশ্ববিদ্যালয়গুলো ভর্তি প্রক্রিয়ার ক্ষেত্রে নিজস্ব মানদন্ড দেওয়ার ক্ষমতা রাখে। তাই ভালো হয় আপনি যদি আপনার পছন্দকৃত বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর ওয়েবসাইটগুলো যদি ঘাটেন। তবে এত চিন্তিত হবার কারণ নেই। আমি আপনাকে প্রায় সব বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর জন্য সাধারণ যেসব ডকুমেন্টস ও যোগ্যতার প্রয়োজন হবে সেগুলো জানিয়ে দিচ্ছি। এক্ষেত্রে- 

  • প্রাথমিক যোগ্যতা হিসেবে আপনার ভালো গ্রেড বা সিজিপিএ এর দরকার পড়বে। ব্যাচেলর ডিগ্রীতে ভর্তি হবার জন্য আপনার এইচএসসি বা সমমান পরীক্ষায় ভাল গ্রেড থাকতে হবে। আর  মাস্টার্স এবং পিএইচডি প্রোগ্রামে ভর্তির জন্য আপনার ভালো সিজিপিএ থাকতে হবে। আর আপনার সিজিপিএ যত বেশি থাকবে, স্কলারশিপ পাবার সম্ভাবনাও ততো বেশি হবে। এক্ষেত্রে ৩.৫ সিজিপিএ সাধারণত বেইসলাইন হিসেবে ধরা হয় অনেকক্ষেত্রে। আপনার সিজিপিএ যদি তুলনামূলক কম থাকে, তবে আপনার হতাশ হবার প্রয়োজন নেই। অন্যান্য প্যারামিটার গুলো ভাল থাকলেই হবে।
  • ল্যাংগুয়েজ টেস্ট এর প্রশংসাপত্র থাকা বাধ্যতামূলক। এক্ষেত্রে আপনার ইংরেজী ভাষাগত পরীক্ষার জন্য শুধু IELTS দিলেই হবে। আর IELTS এ আপনার নুন্যতম ৬.০০ ব্যান্ড স্কোর থাকতে হবে। তবে আপনার সিজিপিএ তুলনামূলক কম হলে এক্ষেত্রে IELTS এর স্কোর টা একটু বেশি ওঠানোর চেষ্টা করতে হবে। আর ইতালীয় ভাষার জন্য B2 Level Euro pass Language Passport Classification বা C2 Level Euro Pass Language Exam পাশ করতে হবে। এক্ষেত্রে B2 Level আর C2 Level এর পার্থক্য হচ্ছে শুধু B2 Level পাশ করলে ইতালিতে গিয়ে আবার আপনাকে ল্যাংগুয়েজ টেস্ট দিতে হবে, কিন্তু C2 Level পাশ করলে আর কোনো টেস্ট দেওয়ার প্রয়োজন নেই। 
  • এছাড়াও ব্যাচেলর থিসিস বা ইন্টার্নশীপ রিপোর্ট, Letter of Recommendation (LOR), Statement of Purpose (SOP), একাডেমিক বিভিন্ন কাগজপত্রের প্রয়োজন পড়বে। আরেকটি ব্যাপার GRE বা GMAT কিংবা গবেষণা প্রবন্ধ এর জন্য কোনো বাধ্যবাধকতা নেই। কিন্তু মাস্টার্স বা পিএইচডি প্রোগ্রামের ক্ষেত্রে আপনার আন্তর্জাতিকভাবে স্বীকৃত  জার্নালে গবেষণা প্রবন্ধ প্রকাশিত থাকলে তবে তা আপনার স্কলারশিপ পাবার সম্ভাবনাকে বাড়িয়ে দিবে। এছাড়াও বিভিন্ন এক্সট্রা কারিকুলার এক্টিভিটিস, ভলান্টিয়ারি এক্সপিরিয়েন্স, জাতীয় বা আন্তর্জাতিক কোনো সম্মাননা স্কলারশিপ পাবার ক্ষেত্রে অনেক কার্যকরী। 

ভিসা সংক্রান্ত যাবতীয় বিষয়াদি

ভিসার ধরন

ইতালিতে মোট তিন ধরনের স্টুডেন্ট ভিসা প্রচলিত আছে, যথাঃ স্টূডেন্ট ভিসা সাব ক্লাস ৫০০, স্টূডেন্ট গার্ডিয়ান ভিসা সাবক্লাস ৫৯০,  স্পেশাল ক্যাটেগরী স্টূডেন্ট ভিসা সাবক্লাস ৪৪৪। 

স্টূডেন্ট ভিসা (সাবক্লাস ৫০০)

স্টূডেন্ট ভিসা (সাবক্লাস ৫০০) এর মেয়াদ সাধারণত ৫ থেকে ৬ বছর পর্যন্ত হয়ে থাকে। এই ভিসায় আপনার মোট খরচ ৩০০০০ টাকা থেকে ৩৫০০০ টাকার মতো খরচ হতে পারে। আপনার কোনো স্পন্সরের প্রয়োজন পড়বে না এই ভিসার ক্ষেত্রে। আর আপনি যদি এই ভিসায় ইতালিতে যান, তবে পড়ালেখার পাশাপাশি আপনি পার্ট টাইম চাকুরীও করতে পারবেন। আর এই ভিসা পাওয়ার জন্য আপনাকে ইতালির যেকোনো শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ভর্তির সুযোগ পেলেই চলবে, এছাড়া আর তেমন কোনো বাধাধরা নিয়ম নেই। 

স্টূডেন্ট গার্ডিয়ান ভিসা (সাবক্লাস ৫৯০)

স্টূডেন্ট ভিসা (সাবক্লাস ৫০০) সাধারণত ৫ বছর মেয়াদী ভিসা। এ ধরনের ভিসার ক্ষেত্রে স্টূডেন্ট ভিসা (সাবক্লাস ৫০০) এর মতোই খরচ হবে। অর্থাৎ এই ভিসা পাবার জন্য আপনাকে গুণতে হবে ৩০০০০ থেকে ৩৫০০০ টাকার মতো। আর এই ভিসা আবেদনের জন্য কোনো স্পন্সরের প্রয়োজন নেই। আরেকটি ব্যাপার, আপনি যদি এই ভিসায় ইতালীতে যান, তবে পড়ালেখার পাশাপাশি আপনি পার্ট টাইম চাকুরীও করতে পারবেন আবার চাইলে আপনি ফুল টাইম চাকুরীও করতে পারবেন। তবে এ ধরনের ভিসা পাওয়ার জন্য আপনার পরিবারবর্গের কোনো সদস্যকে পূর্ব থেকেই ইতালিতে থাকতে হবে, অর্থাৎ ইতালির পূর্ব অধিবাসী হতে হবে।

স্পেশাল ক্যাটাগরি স্টূডেন্ট ভিসা (সাবক্লাস ৪৪৪)

স্পেশাল ক্যাটাগরি স্টূডেন্ট ভিসা (সাবক্লাস ৪৪৪) এর নির্দিষ্ট কোনো মেয়াদ নেই। আর এই ধরনের ভিসায় আবেদন করার জন্য কোনো খরচও হয় না। পড়ালেখার পাশাপাশি পার্ট টাইম, ফুল টাইম যেকোনো ধরনের চাকুরী আপনি করতে পারবেন, যদি আপনি এই ভিসায় ইতালিতে যান। এ ধরনের ভিসা পাওয়ার ক্ষেত্রেও আপনার পরিবারবর্গের কোনো সদস্যকে ইতালির পূর্ব অধিবাসী হতে হবে।

ভিসার জন্য আবেদনের নিয়মাবলী 

বিশ্ববিদ্যালয় থেকে অফার লেটার পাওয়ার পর ঐ তিন ধরনের ভিসা থেকে আপনার জন্য উপযোগী ভিসাটি বাছাই করে ভিসার জন্য আবেদন করতে হবে। এক্ষেত্রে প্রথমে আপনাকে ভিসার আবেদন ফর্ম ডাউনলোড করতে হবে। অতঃপর প্রয়োজনীয় সব তথ্য দিয়ে সঠিকভাবে আবেদন ফর্মটি পূরণ করবেন। আবেদন ফর্মের সাথে যেসব ডকুমেন্ট সংযুক্ত করা লাগবে সেগুলো আগে স্ক্যান করে নিবেন। অতঃপর স্ক্যানকৃত ডকুমেন্টস গুলো ভিসা আবেদন ফর্মের সাথে সংযুক্ত করে দিবেন। সবকিছু সঠিকভাবে করার পর, ইতালিয়ান এম্ব্যাসি বা ভিসা সাপোর্টেড অফিসে যেয়ে জমা দিয়ে আসবেন। ব্যস, আপনার ভিসা আবেদনের কাজ শেষ।  

সাধারণত এই ভিসা ও ভর্তির প্রক্রিয়া সম্পন্ন হওয়ার জন্য কমপক্ষে তিন থেকে চার মাসের মতো সময় লাগে। আর অনলাইনে ভিসার আবেদন করার জন্য সর্বোচ্চ চার থেকে সাড়ে পাঁচ হাজার টাকার মতো খরচ হতে পারে। এক্ষেত্রে অনলাইন ভিসা অ্যাসিস্ট অ্যাকাউন্ট করার জন্য হাজারখানেক টাকা খরচ হতে পারে, আর বায়োমেট্রিক এনরোলমেন্টের জন্য আড়াই থেকে তিন হাজার টাকা পর্যন্ত খরচ হতে পারে।

ভিসা আবেদনের জন্য প্রয়োজনীয় কাগজপত্র

এখন প্রশ্ন হচ্ছে, আপনার ভিসা আবেদন ফর্মের সাথে যে ডকুমেন্ট সংযুক্ত করার কথা বললাম, এই ডকুমেন্টস গুলো কি কি? অর্থাৎ কোন কাগজপত্র গুলো আপনার ভিসা আবেদনের জন্য সংযুক্ত করা দরকার। বেশ, আমি আপনাকে এখন জানিয়ে দিচ্ছি ভিসা আবেদনের জন্য আপনার কি কি কাগজপত্র দরকার। 

  • অফার লেটার, সিভি, এসওপি, রেফারেন্স লেটার, মোটিভেশনাল লেটার, কাজের অভিজ্ঞতার ডকুমেন্ট, IELTS/TOEFL বা যদি GRE/GMAT দিয়ে থাকেন সেগুলোর সার্টিফিকেট
  • পূর্ববর্তী একাডেমিক কাগজপত্র যেমন সার্টিফিকেট, মার্কশীট, ট্রান্সক্রিপ্ট ইত্যাদি সত্যায়িত কপি
  • চারটি পাসপোর্ট সাইজের ছবি, বৈধ পাসপোর্ট, জেনুইন টেম্পোরারি এন্ট্রান্ট (জিটিই), অপরাধমূলক ও ফৌজদারী কাজের প্রমাণপত্র, স্বাস্থ্য বীমা (ওএসএইচসি), মেডিক্যাল রিপোর্ট, 
  • ব্যাংক স্ট্যাটমেন্ট, ব্যাংক সলভেন্সি (এক্ষেত্রে আপনাকে ৮,০০০-১২,০০০ ইউরো আপনার ব্যাঙ্কে জমা দেখাতে হবে),, এফিড্যাভিট এর কাগজপত্র (যদি প্রয়োজন হয়), ফিক্সড জামানত পেপার ইত্যাদি সহ অতিরিক্ত আরো কিছু কাগজপত্র সংযুক্ত করে দেওয়া লাগতে পারে।

কাজের সুবিধা ও স্থায়ী বসবাস

সপ্তাহে আপনি মোট ২০ ঘন্টা কাজ করার অনুমতি পাবেন ইতালিতে পড়াশোনা অবস্থায়। তবে পার্ট টাইম জব পাবার ক্ষেত্রে ইতালীয় ভাষা জানাটা অনেকাংশে আপনাকে সহায়তা করবে। নতুবা কাজ পাওয়াটা একটু কষ্টকর হয়ে যাবে। আর আপনি যদি পার্মানেন্ট রেসিডেন্সি (পিআর) বা ইতালিতে স্থায়ীভাবে বসবাস করতে চান, তবে আপনার পিআর ক্যাটাগরির ভিসার প্রয়োজন পড়বে। এক্ষেত্রে তখন আপনার স্টূডেন্ট ভিসা টি পিআর ক্যাটাগরির ভিসাতে পরিবর্তন করতে হবে। অতঃপর আপনি যদি দশ বছর সেখানে বসবাস করেন তবে ইতালির নাগরিকত্বের জন্য আবেদন করতে পারবেন। 

পরিশেষে

আশা করি, ইতালিতে উচ্চশিক্ষা ও স্ক্লারশিপ সংক্রান্ত যাবতীয় খুটিনাটি বিষয়াদি আপনি জেনে গেছেন। এখন আপনার কাজ হচ্ছে ইতালির বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের ওয়েবসাইট, বিভিন্ন প্রফেসরদের ওয়েবসাইট ও স্কলারশিপগুলো নিইয়ে একটু ঘাটাঘাটি করা। আর আপনার মনে উচ্চশিক্ষা ও স্ক্লারশিপ সংক্রান্ত আরো যদি কোনো প্রশ্ন থেকে থাকে তবে এক্ষুনি তা কমেন্ট বক্সে করে ফেলুন। উচ্চশিক্ষা সংশ্লিষ্ট আরো নতুন সব তথ্যবহুল ভিডিও পেতে আমাদের সাথেই থাকুন। ধন্যবাদ। 


স্টুডেন্ট ভিসা বিষয়ে প্রশ্ন থাকলে নিচের লাইনটি ফলো করুন। সেবারু ডটকম (shebaru.com) আপনার পাশে আছ সবসময়।
এই লিংক গুলোতে ক্লিক করুন: স্টুডেন্ট ভিসা ফ্রি পরামর্শ ফরম।। স্টুডেন্ট ভিসা ফেসবুক গ্রুপ।। ইউটিউব চ্যানেল।। সরাসরি যোগাযোগ
Mobile & What’s App: +8801711981051 / What’s app (10 am-9pm)। এই সময়ের মধ্যে কল করুন প্লিজ।

লেখাটিতে উপকার পেয়েছেন? আবার পড়তে চান? তাহলে শেয়ার করুন।

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *