আইইএলটিএস প্রস্তুতি

আইইএলটিএস প্রস্তুতি ও ভর্তি তথ্য

আইইএলটিএস প্রস্তুতি নেওয়ার আগে জানতে হবে আইইএলটিএস কি? কেন আইইএলটিএস দরকার হয়? মূলত আইইএলটিএস (IELTS) হল, ইংরেজি ভাষায় দক্ষতা নির্ণয় পরীক্ষা পদ্ধতি। এর পূর্ণ রূপ হচ্ছে, International English Language Testing System (IELTS)। বিদেশে উচ্চশিক্ষা অর্জনের জন্য অথবা কাজের ভিসার জন্য আইইএলটিএস এর দরকার হয়। অস্ট্রেলিয়া, কানাডা, নিউজিল্যান্ড, আয়ারল্যান্ড এবং যুক্তরাজ্যে যেতে চাইলে আইইএলটিএস পরীক্ষায় ভাল স্কোর করতে হবে। আইইএলটিএস পরীক্ষাটি সাধারণত অনলাইনে দিতে হয়। এ পরীক্ষার আয়োজক হল, ইউনিভার্সিটি অব ক্যামব্রিজ, বিটিশ কাউন্সিল ও আইডিপি এডুকেশন, অস্ট্রেলিয়া। পরীক্ষা হয় পেপার বেইসড। পরীক্ষায় থাকে লিসনিং (শোনা), রিডিং (পড়া), রাইটিং (লেখা) এবং স্পিকিং (কথা বলা)।
চলুন তা হলে জেনে নেই আইইএলটিএস প্রস্তুতি সম্পর্কে সকল তথ্য ও করণীয়।

আইইএলটিএস পরীক্ষা ও ফলাফল

ব্রিটিশ কাউন্সিল বাংলাদেশ এর তত্ত্বাবধানে প্রতি মাসে তিনবার পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়। অর্থাৎ বছরে ৩৬ বার আইইএলটিএস পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়। কাঙ্ক্ষিত স্কোর পাওয়ার আগ পর্যন্ত যতবার খুশি পরীক্ষায় অংশ নিতে পারবেন। সাধারণত আইইএলটিএস ফল প্রকাশিত হয় পরীক্ষার ১৩ দিন পর। ব্রিটিশ কাউন্সিল থেকে ফলাফল সংগ্রহ করা যায়। এছাড়া ব্রিটিশ কাউন্সিল এর ওয়েবসাইট থেকে পরীক্ষার্থীর নম্বর, পাসপোর্ট নম্বর, জন্মতারিখ, পরীক্ষা প্রদানের তারিখ এন্ট্রি করে সহজেই রেজাল্ট জানা যায়।

আইইএলটিএস স্কোর স্কেল নির্ণয় পদ্ধতি

IELTS স্কোর ১ থেকে ৯ পর্যন্ত গণনা করা হয়। যেমন এসএসসিতে জিপিএ ১ থেকে ৫ পর্যন্ত গণনা করা হয়। বলা যায়, ৯ এর মধ্যে যদি কেউ ৮ স্কোর পায় তা হলে সে খুব ভালো। আর ৭ ভালো। এবং ৬ পর্যাপ্ত। ৫ পরিমিত। ৪ সীমিত। ৩ অতিরিক্তমাত্রায় সীমিত । ২ উত্তীর্ণ নয় । ব্যান্ড ১ যারা অপ্রাসঙ্গিক উত্তর দিয়েছে বা যারা communicate ব্যর্থ হয়েছে। ব্যান্ড ০ পরীক্ষায় অংশগ্রহন করেনি অথবা উত্তর দেয়নি।

আইইএলটিএস প্রস্তুতি নেবেন কিভাবে?

অনেকেই আইইএলটিএস পরীক্ষা নিয়ে খুব ভয়ে থাকেন। শুরুতেই আপনার লক্ষ্য ঠিক করতে হবে। রাতারাতি ভালো স্কোর করা সম্ভব নয়। আবার ইংরেজিতে আপনি যথেষ্ট দক্ষ হলেও কোনো প্রস্তুতি ছাড়া পরীক্ষা দিয়ে আশানুরূপ স্কোর লাভ করা সহজ নয়। তবে আইইএলটিএস এ কৌশলগতভাবে প্রস্তুতি নিয়ে যথেষ্ট ভালো স্কোর করা সম্ভব। প্রশ্নপত্র সমাধান করাটা প্রস্তুতির জন্য খুব গুরুত্বপূর্ণ ভুমিকা রাখে। ঘড়ি ধরে প্রশ্নপত্র সমাধান করুন। সম্ভব হলে পরীক্ষার পরিবেশে একসঙ্গে সব অংশের পরীক্ষা দিন। আইইএলটিএস নিবন্ধনের সময় প্রস্তুতির জন্য দুটি ছোট বই দেওয়া হয়। এগুলো ভালোমতো পড়ুন ও সমাধান করুন।

সংক্ষেপে আইইএলটিএস প্রস্তুতির কৌশল

প্রতিদিন অন্তত ৩০ মিনিট সময় বরাদ্দ রাখুন আইইএলটিএস এর জন্য। ইংরেজি মুভি দেখুন, পত্রিকা পড়ুন, খবর দেখুন টিভিতে আর কয়েক বন্ধু মিলে স্পিকিং প্র্যাক্টিস করুন। সোজা কথায় আপনাকে এর পেছনে সময় ব্যয় করতে হবে। এ পরীক্ষায় ভালো করার কোনো শর্টকাট রাস্তা নেই। অন্তত তিন মাস সময় হাতে রাখা ভালো।

প্রস্তুতি ঘরে বসে নেবেন, নাকি কোচিং এ ভর্তি হবেন?

প্রস্তুতির বিষয়টি পুরোটাই আপনার ব্যক্তিগত বিষয়। আপনার যদি কমিটমেন্ট থাকে, তাহলে ঘরে বসে ইন্টারনেটের সাহায্য নিয়েই প্রস্তুতি নেয়া সম্ভব। কোচিং সেন্টারে শুধু কিছু টেকনিক শিখিয়ে দেয়, বাকিটা আপনার নিজের কাজ। তবে আপনি কিছুদিন নিজে প্রস্তুতি নিয়ে তারপর একটি মক টেস্ট দিতে পারেন যেকোনো জায়গায় নিজের লেভেল যাচাই করার জন্য। মক টেস্ট দিলে পুরো প্রক্রিয়ার সাথেও পরিচিত হতে পারবেন। ভালো সহায়তার জন্য বিভিন্ন ওযেবসাইটে যেতে পারেন। তাছাড়া ইউটিউব এবং ফেসবুকের সাহায্য নিতে পারেন।উচ্চশিক্ষার্থে দেশের বাইরে বিভিন্ন ভার্সিটিতে লেখাপড়া করতে ইচ্ছুকদের আইইএলটিএসের free Online IELTS test অংশ এ অংশগ্রহণের সুযোগ আছে ।

লিসেনিং (Listening):

পরীক্ষার সময়: ৩০ মিনিট
এই পরীক্ষায় চারটি অংশ থাকে। অর্থাৎ মোট ৪টি রেকর্ডিং শোনানো হবে। প্রথম দুটি অংশে যথাক্রমে জনগণের আগ্রহের বিষয় সংশ্লিষ্ট সংলাপ এবং বক্তব্য উপস্থাপন করা হয়। তৃতীয় ও চতুর্থ অংশে থাকে দুি বা ততোধিক ব্যক্তির শিক্ষা কিংবা প্রশিক্ষণ বিষয়ক আলোচনা। প্রার্থীকে একবার প্রশ্ন সম্পর্কিত একটি রেকর্ড শোনানো হয়, প্রশ্ন পড়ে উত্তরপত্রে উত্তর লেখার জন্য ১০ মিনিট সময় দেয়া হয়। লিসনিং পরীক্ষায় বেচিত্র্যময় প্রশ্ন করা হয়। এ অংশে ৩৮ থেকে ৪০টি প্রশন করা হয় এবং সময় দেয়া হয় ৩০ মিনিট। এ প্রশ্নগুলো হচ্ছে সাধারণত এমসিকিউ, ছোট প্রশ্নে বক্তার বক্তব্য শুনে প্রশ্নের উত্তর লেখা, শূন্যস্থান পূণ, মিলকরণ-একটি শব্দের সাথে অন্য শব্দ মিলিয়ে পূর্ণাঙ্গ একটি অর্থ দাঁড় করানো, চার্ট পূর্ণ করা প্রভৃতি।

রিডিং (Reading):

পরীক্ষার সময়: ৬০ মিনিট
উচ্চশিক্ষার্থে যারা বিদেশ যেতে চান তাদের জন্য একাডেমিক রিডিং এ পরীক্ষা দিতে হয়। এ পরীক্ষায় সংবাদপত্র, জার্নাল, বই ও ম্যাগাজিন থেকে যে কোন বিষয় আসতে পারে; তার উপর লিখতে হয়। প্রশ্নের সাধারণত এমসিকিউ হয়। অল্প কথায় উত্তর, সারাংশ, কোন নির্দিষ্ট প্যাসেজ, প্যারার টাইটেল প্রদান, মিলকরণ ইত্যাদি। এ অংশে ৩৮ থেকে ৪০টি প্রশ্ন করা হয় যার জন্য সময় এক ঘন্টা ।

রাইটিং (Writing) :

সময়: ৬০ মিনিট
এ অংশে প্রার্থীকে ইংরেজিতে কোন বিষয় বুঝতে পারা ও তার প্রাকাশভঙ্গির দক্ষতা নির্ণয় করা হয়। দুধরনের রাইটিং এর মধ্যে বিদেশে উচ্চশিক্ষার জন্য একাডেমিক রাইটিং এ অংশ নিতে হয়। এ অংশে এক ঘণ্টার ভিতর দুটি প্রবন্ধ লিখতে হয়। লেখার সময় যে বিষয়গুলো বিশেষভাবে খেয়াল করতে হবে তা হল, অপ্রাসঙ্গিক বিষয় এড়িয়ে চলা, যুক্তি কিংবা দৃষ্টান্তের সঠিক প্রয়োগ করে সংক্ষেপে গুছিয়ে লেখা। জটিল শব্দ পরিহার করা। স্পস্ট করে লেখা। এক ঘণ্টার পরীক্ষায় দুটি রচনায় অংশ গ্রহণ করতে হয় পরীক্ষার্থীকে। এ দুটি রচনার প্রথমটিতে একটি গ্রাফ বা চার্টকে ব্যাখ্যা করতে বলা হয়। ২০ মিনিটের মধ্যে ন্যূনতম ১৫০ শব্দের ভিতরে রচনাটি লিখতে হবে। দ্বিতীয়,যে রচনাটি লিখতে হবে সেখানে মূলত একটি বক্তৃতা দেয়া থাকে। নিজের মত করে বিষয়টি গুছিয়ে লিখতে হয়। শব্দসংখ্যা ২৫০-এর মধ্যে সীমিত রাখতে হয়।

স্পিকিং (Speaking):

পরীক্ষার সময়: ১০-১৫ মিনিট
৫টি ধাপে পরীক্ষার মাধ্যমে প্রার্থীর ইংরেজি বলার দক্ষতা পরীক্ষা করা হয় এ পর্যায়ে। এখানে পরীক্ষক প্রার্থীকে তার নাম, বয়স, ঠিকানা, কোন বিশ্ববিদ্যালয়ে এবং কোন বিষয়ে পড়তে ইচ্ছুক ইত্যাদি বিষয়ে প্রশ্ন করেন। একটি কার্ডে সমস্যা বা ঘটনার ছবি থাকবে। ছবি দেখে পরীক্ষার্থী পরীক্ষককে প্রশ্ন করবেন। প্রশ্ন হতে হবে যৌক্তিক-অপ্রাসঙ্গিক নয়। মনে রাখতে হবে, পরীক্ষার্থী যত বেশি যৌক্তিক ও প্রাসঙ্গিক প্রশ্ন করতে পারবেন তার স্কোর তত বেশি হবে। ব্যাখ্যাসহ উপরোক্ত বিষয়ে প্রার্থীকে পরীক্ষকের সাথে আলোচনা করতে হয়। পরীক্ষার জন্য মোট সময় দেয়া হয় ১০-১৫ মিনিট। ১ম অংশের জন্য ৪-৫ মিনিট, ২য় অংশের জন্য ২-৩ মিনিট এবং শেষ অংশের জন্য ৪-৫ মিনিট।

আইইএলটিএস সহায়ক গ্রন্থ ও সিডি

আইইএলটিএস সম্পর্কে যেকোনো তথ্য পেতে সবচেয়ে নির্ভরযোগ্য মাধ্যম হলো ব্রিটিশ কাউন্সিল এবং আইডিপি, বাংলাদেশ। ব্রিটিশ কাউন্সিলের লাইব্রেরিতে প্রস্তুতির জন্য প্রচুর ভালো বই পাবেন। তবে এগুলো ব্যবহারের জন্য লাইব্রেরির সদস্য হতে হবে। ক) ক্যামব্রিজ আইইএলটিএস (১, ২, ৩) ক্যামব্রিজ ইউনিভার্সিটি সিন্ডিকেট।
খ) প্রিপারেশন ফর আইইএলটিএস ইউনিভার্সিটি অফ টেকনোলজি, সিডনি।
গ) আইইএলটিএস টু প্র্যাকটিস নাউ। গিবসন, রুশেক এন্ড অ্যানি সুয়ান।
ঘ) প্রিপারেশন এন্ড প্রাকটিস উইনডি, জেরেমি এন্ড রিচার্ড স্টুয়ার্ড।
ঙ) পাসপোর্ট টু আইইএলটিএস

সিডি : ১. ক্যামব্রিজ-৩ এবং ২. সাকসেস টু আইইএলটিএস

আইইএলটিএস প্রস্তুতি সহায়ক ওয়েব লিংক

কেমব্রিজ বিশ্ববিদ্যালয়, আইডিপি অস্ট্রেলিয়া এবং ব্রিটিশ কাউন্সিলের সরাসরি তত্ত্বাবধানেই আইইএলটিএস হয়। তাদের কাছ থেকেই যদি সরাসরি তথ্য পাওয়া যায়, তখন আর অন্য কোথাও যাওয়াটা মোটেও বুদ্ধিমানের কাজ নয়। official IELTS website is full of information on format and has practice exercises.

ব্রিটিশ কাউন্সিল আইইএলটিএস প্রস্তুতি লিংক

কোথায়, কিভাবে পরীক্ষার জন্য রেজিস্ট্রেশন করবেন?

IDP বা ব্রিটিশ কাউন্সিল যেকোনো একটির অধীনে পরীক্ষা দেওয়া যায়। ঢাকার ধানমন্ডি, উত্তরা সহ মোট ৫টি জায়গায় ব্রিটিশ কাউন্সিলের আই.ই.এল.টি.এস টেস্ট সেন্টার আছে। তাছাড়া ঢাকার বাইরে চট্টগ্রাম, সিলেট এবং রাজশাহীতেও ব্রিটিশ কাউন্সিলের টেস্ট সেন্টার রয়েছে। অনলাইনে অথবা টেস্ট সেন্টারে পরীক্ষার জন্য রেজিস্ট্রেশন করা যায়। বিস্তারিত জানার জন্য IDP অথবা ব্রিটিশ কাউন্সিলের ওয়েবসাইটের সাহায্য নিতে পারেন।

বিজ্ঞাপন… ফ্রি অনলাইন সেমিনার

অনলাইন রেজিট্রেশন:
বিদেশে উচ্চশিক্ষা স্কলারশিপ ও ক্যারিয়ার বিষয়ক ফ্রি অনলাইন সেমিনারের জন্য খুব সহজেই রেজিস্ট্রেশন করুন এখনি।
রেজিট্রেশন লিংক: https://shebaru.com/seminar/
রেজিস্ট্রেশনে সমস্যা হলে যোগাযোগ করুন সেবারু এডুকেশন মার্কেটিং টিমের সাথে।

ফেসবুক গ্রুপ:
বিদেশের জব ভিসা সম্পর্কে আপনাদের সাথে যোগাযোগ আরও দৃঢ় করতে চালু করেছি “স্টূডেন্ট ভিসা হেল্পলাইন” ফেসবুক গ্রুপ।
এই গ্রুপে থাকছে নতুন নতুন দেশের ভিসা আপডেট। সেই সাথে আপনিও এ গ্রুপে যে কোন ধরনের মতামত ও প্রশ্ন করতে পারবেন।
গ্রুপ লিংক www.facebook.com/groups/studentvisahelpline

কোথায় পাবেন আইইএলটিএস প্রস্তুতির সহযোগিতা?

কানাডার ইমিগ্রেশন, জব ভিসা ও স্টুডেন্ট ভিসার জন্য আইইএলটিএস প্রস্তুতি ও প্রয়োজনীয় ডকুমেন্ট রেডি করতে সহযোগিতা করে আসছে ট্রাস্ট গ্লোবাল স্টাডি এ্যান্ড ইমিগ্রেশন। সকল দেশের স্টুডেন্ট ভিসা ও আইইএলটিএস প্রস্তুতি বিষয়ক আরও
আডডেটেড খবর পেতে সাথে থাকুন…
ওয়েবসাইটইউটিউব চ্যানেলফেসবুক গ্রুপ । মোবাইল : ০১৭৯০৫৫০০০০

আশা করি উপরের আলোচনায় আইইএলটিএস স্কোর, আইইএলটিএস কি? আইইএলটিএস বই কোথায় পাবেন? আইইএলটিএস খরচ কত?
ইত্যাদি বিষয়ে একটি ধারণা পেয়েছেন। আরও কোন জানার থাকলে দয়া করে কমেন্ট করুন। আমরা আপনার প্রশ্নের জবাব দিতে পারলে খুশি হব। সাথে থাকার জন্য ধন্যবাদ।