CSE-IN-Malaysia

মালয়েশিয়ায় কম্পিউটার সাইন্স এন্ড ইঞ্জিনিয়ারিং ভর্তি

কম্পিউটার সাইন্স এন্ড ইঞ্জিনিয়ারিং বিষয়টি আজকাল অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ হয়ে উঠেছে। বাংলাদেশের পাশাপাশি বিশ্বের অনেক দেশেই কম্পিউটার বিজ্ঞান বিভাগে পড়ার সুযোগ রয়েছে। যেমন আমেরিকা, কানাডা, ইউকে, অস্ট্রেলিয়া মালয়েশিয়া চায়না ইন্ডিয়া ইত্যাদি। বাংলাদেশের ভালো বিশ্ববিদ্যালয়ে চান্স পাওয়া অনেক কঠিন কিন্তু বিদেশের বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে বাংলাদেশিদের জন্য ভালো বিশ্ববিদ্যালয়ে চান্স পাওয়া তুলনামূলক সহজ, কেননা সেখানে ভর্তি পরীক্ষার মতো বিরক্তিকর এবং কঠিন বিষয়ের সম্মুখীন হতে হয় না। তাই বাংলাদেশী স্টুডেন্টদের বিদেশী বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ার সুযোগ অনেক বেশি। এক্ষেত্রে বাংলাদেশের আবহাওয়া কালচার এবং দূরত্বের দিক থেকে মালয়েশিয়া এক নম্বর অবস্থানে রয়েছে। তাই মালয়েশিয়ায় কম্পিউটার সাইন্স এন্ড ইঞ্জিনিয়ারিং ভর্তি হওয়ার জন্য প্রতিবছরই অনেক শিক্ষার্থী আমাদের শরণাপন্ন হয়। মালয়েশিয়ায় এ বিষয়ে উচ্চ শিক্ষার জন্য অনেক বিশ্ববিদ্যালয় ও কলেজ রয়েছে।

কম্পিউটার সাইন্স এন্ড ইঞ্জিনিয়ারিং টিউশন ফি

একেক বিশ্ববিদ্যালয়ের টিউশন ফিস সুযোগ সুবিধা একেক রকম হয়ে থাকে। এখানে রয়েছে সরকারি বেসরকারি ও সরকারি লিংক ইউনিভার্সিটি। আপনি কোন বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি হবেন এটি নির্ভর করে আপনার আর্থিক অবস্থার উপর। সরকারি এবং বেসরকারি উভয় ক্ষেত্রেই পড়াশোনার খরচ প্রায় সমান। কিউ এস ওয়ার্ল্ড রেংকিং এ সরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের সাথে পাল্লা দিয়ে মালেশিয়ার বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়গুলো এগিয়ে চলেছে। কম্পিউটার বিজ্ঞান বিভাগে পড়তে যাওয়ার জন্য আসা শিক্ষার্থীদের যে সকল প্রশ্নের সম্মুখীন হতে হয় তা নিচে সংক্ষেপে তুলে ধরবার চেষ্টা করলাম।

এসএসসি এবং এইচএসসি তে কিরকম রেজাল্ট থাকলে মালয়েশিয়ার বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে ভর্তি হওয়া যায়?

উত্তর: একেকরকম ইউনিভার্সিটি সিএসই তে ভর্তির জন্য একেক রকম রেজাল্ট চেয়ে থাকে। ভালো ইউনিভার্সিটি গুলো
সাধারণত তিন পয়েন্টের নিচে ভর্তি করাতে চায় না। এইচএসসিতে রেজাল্ট যদি টু পয়েন্ট এর উপরে হয় তাহলেও ভর্তি হওয়া যায়।

কম্পিউটার সাইন্স এন্ড ইঞ্জিনিয়ারিং পড়াশোনার সময় মালয়েশিয়ায় পার্ট টাইম জব করার সুযোগ আছে কি?

উত্তর: পার্ট টাইম জব খোকার ফুল টাইম জব জব সাধারণত নির্ভর করে আপনি কি কাজে দক্ষ তার উপর। এবং আপনার কাজ করার জন্য যে ধরনের স্টেমিনা দরকার তা আছে কিনা। কারণ পড়ালেখা এবং ক্লাস ঠিক রেখেই পার্টটাইম জব করা যেতে পারে। তবে কম্পিউটার বিজ্ঞানের ছাত্র দের জন্য আউটসোর্সিং সহ অনেক আইটি কোম্পানিতে পার্টটাইম জব করার সুযোগ রয়েছে। আমার পরিচিত অনেক ছাত্র-ছাত্রী সেখানে মাল্টিন্যাশনাল অনেক কোম্পানিতে পার্টটাইম জব করছে।

সিএসই তে পড়ে অন্যদেশের অর্থাৎ অস্ট্রেলিয়া কানাডা ইউকে এবং ইউএসএতে ক্যারি ট্রান্সপার অথবা স্কলারশিপে যাওয়ার সুযোগ আছে কিনা?

উত্তর: টেইলার্স ইউনিভার্সিটি ইউসিএস ইউনিভার্সিটি সহ আরো বেশ কিছু ইউনিভার্সিটি সরাসরি ইউকে অস্ট্রেলিয়া কানাডা সহ আরো অনেক দেশে ক্রেডিট ট্রান্সফারের সুযোগ রেখেছে। এছাড়াও ইনডাইরেক্টলি সকল বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ক্রেডিট ট্রান্সফার করা যায়। একাডেমিক রেজাল্ট এর উপর নির্ভর করে একেক বিশ্ববিদ্যালয় একেক ধরনের স্কলারশিপ দিয়ে থাকে।

বাংলাদেশের প্রাইভেট বিশ্ববিদ্যালয় পড়ার চেয়ে মালয়েশিয়ার প্রাইভেট বিশ্ববিদ্যালয় সি সি ই পড়া ভালো কেন?

উত্তর: বাংলাদেশের বিশ্ববিদ্যালয় সিএসইতে পড়ার জন্য যে পরিমাণ অর্থ ও শ্রম ব্যয় হয় ঠিক একই পরিমাণ অর্থ ও শ্রম ব্যয় মালয়েশিয়া থেকে বাংলাদেশের চেয়ে ভাল মানের বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়া যায়। বাংলাদেশের বেশিরভাগ বিশ্ববিদ্যালয় ঢাকা শহরে অবস্থিত। আর ঢাকা বর্তমানে বসবাসের জন্য অনুপোযোগী একটি শহরে পরিণত হয়েছে। অন্যদিকে মালয়েশিয়ার কোথাও ঢাকার মত যানজট বিদ্যুৎ বিভ্রাট ও পরিবেশ দূষণ নেই। তাই আমি পরামর্শ দেবো যারা আর্থিকভাবে সচ্ছল তারা ছেলেমেয়েদেরকে বাংলাদেশ না পরিয়ে মালয়েশিয়া অথবা অন্য যে কোন উন্নত দেশে পাঠাতে পারেন। এতে করে দেশের শিক্ষাদিক্ষা পরিবেশ ও অর্থনীতি উন্নত হতে পারে।

মালয়েশিয়ার কোন কোন বিশ্ববিদ্যালয়ে সিএসই পড়ানো হয়?

উত্তর:

কম্পিউটার সাইন্স পড়ার জন্য মালয়েশিয়ার কোন বিশ্ববিদ্যালয় সবচেয়ে ভালো?

উত্তর: মালয়েশিয়ায় কম্পিউটার বিজ্ঞানে পড়ার জন্য অনেক ভালো ভালো বিশ্ববিদ্যালয় রয়েছে। এর মধ্যে অন্যতম মাশা ইউনিভার্সিটি এশিয়া প্যাসিফিক ইউনিভার্সিটি অফ ক্রিয়েটিভ টেকনোলজি ইউনিভার্সিটি টেকনোলজি মালয়েশিয়া উনিভর্সিটি অফ মালায়া নিলাই ইউনিভার্সিটি ইত্যাদি।

কম খরচে ভাল মানের বিশ্ববিদ্যালয় অথবা কলেজ কোনটি?

উত্তর: কম খরচের মধ্যে ইউনিভার্সিটি পছন্দ করতে চাইলে নিলা ইউনিভার্সিটি যেখানে 10 থেকে 12 লাখ টাকার মধ্যে সিএসই
কমপ্লিট করা যাবে এরপরে হচ্ছে সিটি ইউনিভার্সিটি যেখানে কম্পিউটার সায়েন্সে পড়ার জন্য 8 লাখ 41000 700 টাকা প্রায় লাগে।

কম্পিউটার বিজ্ঞানের জন্য মালয়েশিয়ার কোন বিশ্ববিদ্যালয় ইউএস রেংকিংয়ে এগিয়ে আছে?

উত্তর: ইউ সি এস আই উনিভার্সিটি ওয়ার্ল্ড র্যাঙ্কিংয়ে ফোর হান্ড্রেড 41

মালয়েশিয়ায় থাকা খাওয়ার জন্য কি রকম খরচ লাগে?

মালয়েশিয়ার বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে কম্পিউটার বিজ্ঞান ইঞ্জিনিয়ারি বিষয়ে ভর্তির জন্য কোন অনলাইন মাধ্যমের সহযোগিতা নিতে পারি?

উত্তর: অনেক ওয়েবসাইট আছে এছাড়াও ইউটিউব চ্যানেল রয়েছে ফেসবুক পেজ রয়েছে যেগুলোতে মালয়েশিয়ায়
সিএসই যন্ত্রের উপর বিভিন্ন আর্টিকেল এবং তথ্য প্রকাশ করে থাকে এরমধ্যে কিছু লিংক নিচে দেওয়া চেষ্টা করবা করলাম।


স্টুডেন্ট ভিসা বিষয়ে প্রশ্ন থাকলে নিচে কমেন্ট করুন। সেবারু ডটকম (shebaru.com) থেকে খুব দ্রুত উত্তর দেওয়া হবে ইনশাআল্লাহ।
ফ্রি রেজিস্ট্রেশন করুন: স্টুডেন্ট ভিসা বিষয়ক ট্রেনিং।। স্টুডেন্ট ভিসা ফেসবুক গ্রুপ।। ইউটিউব চ্যানেল।। ভিসার জন্য যোগাযোগ
মো+হোয়াটসঅ্যাপ: +8801790550000 লেখাটি সর্বশেষ আপডেট করা হয়েছে: ২৫ নভেম্বর ২০২১

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *