কাজের বুয়া

কাজের বুয়া : মেইড সার্ভিস নিন অনলাইনে

আমাদের দৈনন্দিন জীবনে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে কাজের বুয়া। যাদের ছাড়া বর্তমানে আপনি আপনার বাসা সুন্দর রাখার কথা কল্পনাও করতে পারবেন না। আর এই সমস্যা সমাধানে অনেক নতুন উদ্যোক্তা নিয়ে এল মেইড সার্ভিস সেবা অনলাইনে। আগের যুগে বাসায় বুয়া বা মেইড রাখত শুধু উচ্চ শ্রেণীর লোক। তবে বর্তমানে মানুষ সবাই নিজ নিজ কাজে ব্যস্ত হয়ে পড়ায় প্রায় সবার বাসায় কাজের মানুষের প্রয়োজন পড়ে। আর এই সমস্যা সমাধানে অনেক নতুন উদ্যোক্তা নিয়ে এল মেইড সার্ভিস সেবা।

কিভাবে পাব কাজের বুয়া সার্ভিস?

আগে যদি কেউ আপনাকে বলত অনলাইনে পাওয়া যায় কাজের বুয়া, তাহলে আপনি হয়ত হাসতেন এই ব্যাপারে। তবে
এখন বিশ্বায়নে আর ডিজিটাল এই যুগে সেই অসম্ভব কাজটি সম্ভব হয়েছে। এখন প্রায় সব তরুন বা দক্ষ উদ্যোক্তারা
এই সেবায় নিয়ে এসেছে নানা সেবা। আর তাই ঘরে বসেই অনলাইনের মাধ্যমে আপনি পেয়ে জাবেন কাজের বুয়া
নিয়োগ। আর এই কাজের বুয়া নিয়োগ ও অনেক সোজা। তেমনই কয়েকটি কাজের বুয়া সার্ভিস দেয়া প্রতিষ্ঠানের নামঃ
হ্যালোটাস্ক, কাজের বুয়া বিডি, গৃহকর্মী কাজের বুয়া সার্ভিস বাংলাদেশ, ও অন্যান্য। তাদের মধ্যে আজ আমরা
হ্যালোটাস্ক কাজের বুয়া সার্ভিস নিয়ে আপনাদের বিস্তারিত জানাব।

অনলাইনে মেইড সার্ভিন নিন হ্যালোটাস্কের মাধ্যমে

আপনার কর্মব্যস্ত জীবনকে আরও সহজ করে দিতে ঢাকার দুই ভাই মাহমুদুল হাসান ও মেহেদী হাসান নিয়ে এল
অনলাইন কাজের বুয়া সার্ভিস হ্যালোটাস্ক। এটির পূর্ব নাম “রোবট ডাকো“। ২০১৭ সালে এই নামে যাত্রা শুরু
করেন দুই ভাই অন ডিমান্ডে। আপনি প্লে স্টোর থেকে এপ্সটি ডাউন লোড করে আপনার প্রয়োজন অনুযায়ী
কাজের বুয়া সার্ভিস নিতে পারবেন তাদের নির্ধারিত সময়ের ভিতর। আর এই জন্য আপনাকে নির্দিষ্ট পরিমান
টাকা পরিশোধ করতে হবে।

অনলাইনে কাজের বুয়া সার্ভিস নিয়ে অনেকের ভয় থাকে। তাই এই এপ্স কাজের বুয়া সার্ভিস দেয়ার এর আগে তাদের
ছবি, ফোন নাম্বার, জাতীয় পরিচয় পত্র ইত্যাদি প্রয়োজনীয় কাজগ প্রদান করে থাকে। আর একই সাথে যিনি সেবা
দিবেন তার নিরাপত্তার কথা ভেবে সেবা গ্রহীতার পরিচয় ও নিশ্চিত করে তারা। তাই প্রতারনার থেকে উভয় পক্ষ
সুনিশ্চিত থাকতে পারে।

অনলাইনে কাজের বুয়ার সার্ভিস চার্জ কত?

এই সার্ভিস্টি সকাল ৮টা থেকে সন্ধ্যা ৭টা পর্যন্ত চালু থাকে। তাই এই সময়ের ভিতর আপনার কাজের বুয়া নিয়োগ
করতে পারবেন। আর তার জন্য ঘণ্টা হিসেবে প্রতি ঘণ্টা ১০০ টাকা খরচ পড়বে সার্ভিস চার্জ। অতিরিক্ত নেওয়া হয় ৫০ টাকা প্রথম ঘণ্টায় বেজ ফি হিসেবে । কারন অনেকে কাজের বুয়া সার্ভিস আবেদন করে পরে কাজ করান না, তাই ৫০ টাকা যাতায়াত হিসেবে নেওয়া হয়।  হ্যালোটাস্ক এছাড়াও অন্যান্য প্যাকেজ সিস্টেম চালু রয়েছে।

যেখানে আপনি চাইলে ৭ দিন, ১০ দিন, ২০ দিন কিংবা ১ মাসের জন্য ১-৮ ঘণ্টা নিজের সুবিধা মত সময়ে একজন কাজের বুয়া নিয়োগ রাখতে পারবেন। যেখানে আপনি চাইলে ৭ দিন, ১০ দিন, ২০ দিন কিংবা ১ মাসের জন্য ১-৮ ঘণ্টা নিজের সুবিধা মত সময়ে একজন কাজের বুয়া নিয়োগ রাখতে পারবেন।

এছাড়া চাইলে নির্দিষ্ট দিনের জন্য অনলাইনে কাজের বুয়া করে রাখতে পারবেন। সে ক্ষেত্রে একদিন এর জন্য আপনাকে চার ঘণ্টার হিসেবে ৬০০ টাকা পরিশোধ করতে হবে। তাদের এই এপ্স ভিত্তিক সেবার ব্যাপক চাহিদার কারনে তারা নতুন ফিচার রুপে ‘ছুটাবুয়া” সার্ভিস চালু করতে যাচ্ছে। যেখানে মাসিক ৩০০০ টাকায় মাস ভিত্তিক আপনি পেয়ে যাবেন গৃহকর্মী।

কোন এলাকায় এই অনলাইন কাজের বুয়া সার্ভিস পাওয়া যায়?

প্রথমে শুধু নিদির্ষ্ট মোহাম্মদপুর ও ধানমন্ডিতে এই সেবা থাকলেও , বর্তমানে এই সেবাটি চালু আছে ধানমন্ডি ও মোহাম্মদপুরের পাশাপাশি মিরপুর, কল্যাণপুর, আগারগাঁও, উত্তরা, গুলশান, বনানী, মহাখালি, বসুন্ধরা, বারিধারা, বাড্ডা, রামপুরা, বনশ্রী, মালিবাগ, মগবাজার, খিলগাঁও, বাসাবো, কমলাপুর এলাকায় । বলা যায়, পুরান ঢাকা ছাড়া রাজধানীর প্রায় সব এলাকাতেই হ্যালোটাস্ক এর এই সেবাটি পাওয়া যাচ্ছে।

তাই আপনার যদি এই অনলাইনে কাজের বুয়া প্রয়োজন হয় তবে আজই গুগল প্লে স্টোর থেকে ডাউনলোড করুন এপ্সটি। আর ডাউনলোড এর এড্রেসঃ play.google.com/store/apps/details?id=com.robotlogistics.callrobot&hl=bn&gl=US(opens in a new tab)

এছাড়া আপনি আমাদের ঘরের সাজ সজ্জার জন্য জানালার পর্দা ঘর সাজানোর প্রধান উপকরণ পড়তে পারেন। এবং ঘরকে আরো প্রানবন্ত ও উজ্জল করতে ১০ টি উপকারী ইনডোর প্লান্ট : দাম ও পরিচর্যা নিয়ে আর্টিকেলটি পড়ে সাজাতে পারেন আপনার শান্তির নীড়। আপনার মূল্যবান মতামত জানতে আমাদের ইনবক্স করতে পারেন। যেকোন সেবায় সবার আগে সেবারু আপনার পাশে সর্বদাই।

তথ্য সূত্র:

১. আশা মেইড এজেন্সি

২. টেকশহর- হাতের মুঠোয় কাজের বুয়া

৩. কাজের বুয়া ডটকম ফেসবুক পেজ

৪. গৃহকর্মী সার্ভিস বাংলাদেশ

৫. কজের বুয়া সেবা

৬. কাজের বুয়া খুজে দেবে এ্যাপ-জাগো নিউজ

লেখাটিতে উপকার পেয়েছেন? আবার পড়তে চান? তাহলে শেয়ার করুন।

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *