৩০ দিনে ফ্রি অনলাইনে কুরআন শিক্ষা কোর্স

কুরআন শিক্ষা : ৩০ দিনে ফ্রি অনলাইনে কুরআন শিক্ষা কোর্স

দৈনন্দিন জীবনে কুরআন শিক্ষা ও নিয়মিত কুরআন তেলাওয়াতের গুরুত্ব অপরিসীম । প্রত্যেক মুসলমান মহান আল্লাহর রহমতের জন্যে কোরআন তেলাওয়াত করে।
কোরআন তেলাওয়াত শুদ্ধভাবে না হলে উল্টো গুনাহ হয়। তাই আরবি ভাষার কিছু রীতিনীতির জ্ঞান ও শব্দের সঠিক উচ্চারণের মতো বিষয় গুলো জানা জরুরী।
পবিত্র কোরআন তেলাওয়াতের জন্যে আরবি ভাষার জ্ঞানের পাশাপাশি বিশুদ্ধ উপায় অনুসরণ করা আবশ্যক।
সকল বয়সের নারী ও পুরুষ আমাদের এই ৩০ দিনে ফ্রি অনলাইনে কুরআন শিক্ষা কোর্স করে সঠিক নিয়মে কুরআন পড়তে পারবেন ইনশাআল্লাহ।
৩০ দিনে ফ্রি অনলাইনে কুরআন শিক্ষা কোর্সে আপনি সহজেই শিখতে পারবেন আরবি বর্ণমালার সঠিক উচ্চারণসহ সহিহ করে তেলাওয়াত।

কেন কুরআন পাঠ শিখবেন?

কুরআন শব্দের শাব্দিক অর্থ হল- পাঠ করা বা যা পাঠ করা হয়। আর কুরআনের পারিভাষিক অর্থ হল- আল্লাহ তা‘আলা জিবরাঈল আলাইহিস সালামের মাধ্যমে
সুদীর্ঘ ২৩ বছরে মানব জাতির হেদায়াতের জন্য রাসূলুল্লাহ সল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম এর মাধ্যমে যে কিতাব অবতীর্ণ করেছেন তার নাম আলকুরআন
নিম্নে কুরআনের পরিচয় তুলে ধরা হলো:

এক: কুরআন আল্লাহর কিতাব :

শুধু কুরআন নয় বরং আল্লাহ তা‘আলা যুগে যুগে মানবতার হেদায়াতের জন্য যেসব কিতাব অবতীর্ণ করেছেন সেগুলো সবই আসমানী কিতাব।
আলকুরআন হলো সর্বশেষ আসমানী কিতাব, যা বিশ্বমানবতার জন্য অবতীর্ণ করা হয়েছে। আল্লাহ তা‘আলা বলেন, ‘‘নিশ্চয় এ কুরআন বিশ্ব জাহানের রবের
পক্ষ থেকে অবতীর্ণ করা হয়েছে’’ [সূরা আশ-শু‘আরা-১৯২]।

দুই: কুরআন হলো নুর বা আলো :

অন্ধকারে নিমজ্জিত জাতিকে সত্যিকার আলোর দিকে নিয়ে আসার জন্য আল-কুরআন হলো আলো বা নুর। আল্লাহ তা‘আলা বলেন, অবশ্যই তোমাদের নিকট আল্লাহর পক্ষ থেকে আলো ও সুস্পষ্ট গ্রন্থ এসেছে। এর মাধ্যমে আল্লাহ তাদেরকে শান্তির পথ দেখান, যারা তাঁর সন্তুষ্টির অনুসরণ করে এবং তাঁর অনুমতিতে তিনি তাদেরকে অন্ধকার থেকে আলোর দিকে বের করেন। আর তাদেরকে সরল পথের দিকে হিদায়াত দেন [সূরা মায়িদাহ-১৫,১৬]।

কুরআন শিক্ষা ও তিলাওয়াতের ফযিলত অন্যতম হল কুরআন তিলাওয়াত আল্লাহর সাথে একটি লাভজনক ব্যবসা।
বিভিন্ন ব্যবসায় লাভ এবং ক্ষতি দুটিরই সম্ভাবনা থাকে। কিন্তু এখানে লাভ ছাড়া কোন প্রকার ক্ষতি নেই। এ বিষয়ে আল্লাহ তা‘আলা বলেন,
যারা আল্লাহর কিতাব পাঠ করে, সালাত কায়েম করে, আমার দেয়া রিজিক থেকে গোপনে ও প্রকাশ্যে ব্যয় করে, তারাই আশা করতে পারে এমন ব্যবসা
যা কখনো ক্ষতিগ্রস্ত হবে না। কারণ আল্লাহ তাদের কর্মের পূর্ণ প্রতিদান দেবেন এবং নিজ অনুগ্রহে আরো অধিক দান করবেন।
তিনি ক্ষমাশীল ও দয়াবান। [সূরা ফাতির ২৯-৩০]

তিন: আরও কিছু গুরুত্ব

এছাড়াও কুরআন পাঠকারী প্রত্যেক হরফের জন্য সওয়াব লাভ করে থাকে। রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেছেন, যে ব্যক্তি কুরআনের একটি হরফ পাঠ করে, তাকে একটি নেকি প্রদান করা হয়। প্রতিটি নেকি দশটি নেকির সমান। আমি বলি না যে, আলিফ-লাম-মীম একটি হরফ। বরং আলিফ একটি হরফ, লাম একটি হরফ, মীম একটি হরফ।’’ [সুনান আত-তিরমিযি:২৯১০]
সেই সাথে কুরআনের শিক্ষার্থী ও শিক্ষক সর্বোত্তম ব্যক্তি হিসেবে অভিহিত। কুরআন শিক্ষার মাধ্যমে দুনিয়া ও আখেরাতে শ্রেষ্ঠত্ব অর্জন করা যায়। উসমান রাদিয়াল্লাহু আনহু থেকে বর্ণিত হাদিসে রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেছেন, তোমাদের মধ্যে সর্বোত্তম ব্যক্তি সেই যে নিজে কুরআন শিক্ষা করে ও অপরকে শিক্ষা দেয়। [বুখারী: ৫০২৭]।
কিয়ামতের ভয়াবহ অবস্থায় কুরআন তিলাওয়াতকারীর পক্ষে সুপারিশ করবে।এটা বিরাট সৌভাগ্যের বিষয়। আবু উমামাহ রাদিয়াল্লাহু আনহু থেকে বর্ণিত হাদীসে রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেছেন, তোমরা কুরআন তিলাওয়াত কর, কারণ, কুরআন কেয়ামতের দিন তিলাওয়াতকারীর জন্য সুপারিশ করবে। [মুসলিম: ১৯১০]।

কুরআন শিক্ষা করবেন কেন?

ইসলামী জ্ঞান অর্জনের এক নম্বর উপাদান ও মাধ্যম হল আল কুরআন। আরও একটু স্পষ্ট করে বল্লে, কুরআন হল সকল জ্ঞানের একমাত্র উৎস।
নিচে কি কি কারণে কুরআন শিখতে হয় তা বর্ণনা করা হল।

প্রথমত: কুরআন শিক্ষা ফরয

প্রত্যেক মুসলিমকে কুরআন পড়া জানতে হবে। যে নিজেকে মুসলিম হিসাবে দাবী করবে তাকে অবশ্যই কুরআন শিক্ষা করতে হবে। কুরআন শিক্ষা করা এতো গুরুত্বপূর্ণ বিষয় যে, আল্লাহ তা‘আলা কুরআন শিক্ষা করা ফরয করে দিয়েছেন। আল্লাহ তা‘আলা বলেন, পড় তোমার রবের নামে, যিনি সৃষ্টি করেছেন’ [সূরা আলাক : ১]।
কুরআন শিক্ষায় কোন প্রকার অবহেলা করা যাবে না। উম্মাতকে কুরআন শিক্ষার নির্দেশ দিয়ে ইবন মাসউদ রাদিয়াল্লাহু আনহু বলেন, তোমরা কুরআন শিক্ষা কর এবং তিলাওয়াত কর’ [মুসান্নাফ ইবন আবী শাইবাহ:৮৫৭২]।

দ্বিতীয়ত: সালাত আদায়ের জন্য কুরআন শিক্ষা করা জরুরী

আল্লাহ তা‘আলা ঈমানদার বান্দাহদের উপর প্রতিদিন পাচ ওয়াক্ত সালাত ফরয করেছেন। কুরআন তেলাওয়াত ছাড়া সালাত আদায় হয় না। সালাত আদায় করার জন্যও কুরআন শিখতে হবে। কুরআনে বলা হয়েছে, ‘অতএব তোমরা কুরআন থেকে যতটুকু সহজ ততটুকু পড়’ [সূরা আল-মুযযাম্মিল: ২০]।
এ বিষয়ে রাসূলুল্লাহ সল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেন, যে ব্যক্তি সূরা ফাতেহা পড়ে না তার সালাতই হয় না। [সহীহ বুখারী:৭৫৬]

কুরআন শিক্ষা না করার ক্ষতি কি?

কুরআন না শিখলে অনেক ক্ষতির মধ্যে পড়তে হয়। সেটা পৃথীবীতে ও আখেরাত দুই জায়গাতেই ক্ষতি হবে। নিচে কোরআন না শিখার দুইটি মারাত্নক ক্ষতি
আলোচনা করা হল।

আরও পড়ুন: দোয়া কুনুত অর্থসহ বাংলা উচ্চারণ ও আমল

এক: রাসূল সা. কুরআন না শিখার জন্য অভিযোগ করবেন

আমরা জানি যে কিয়ামতের ভয়াবহ অবস্থায় আল্লাহ তা‘আলার অনুমতিতে রাসূলুল্লাহ সল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম উম্মাতের জন্য শাফায়াত চাইবেন।
কিন্তু যারা কুরআন শিক্ষা করেনি, কুরআনের যেসব হক রয়েছে তা আদায় করেনি, সে দিন নবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম তাদের বিরুদ্ধে আল্লাহর দরবারে অভিযোগ পেশ করবেন। কুরআনে এসেছে, আর রাসূল বলবেন, হে আমার রব, নিশ্চয় আমার কওম এ কুরআনকে পরিত্যাজ্য গণ্য করেছে। [সূরা আল-ফুরকান-৩০]
ইবন কাসীর বলেন, কুরআন না পড়া, তা অনুসারে আমল না করা, তা থেকে হেদায়াত গ্রহণ না করা, এ সবই কুরআন পরিত্যাগ করার শামিল।

কুরআন না জানা ব্যাক্তি কিয়ামতে অন্ধ হয়ে উঠবে

যে কুরআন শিখা থেকে থেকে বিমুখ হয়ে থাকল, সে কতইনা দুর্ভাগা! আলকুরআনে এসেছে, আর যে আমার কুরআন থেকে মুখ ফিরিয়ে নেবে, নিশচয় তার জীবন-যাপন হবে সংকুচিত এবং আমি কিয়ামতের দিন তাকে অন্ধ অবস্থয় উঠাবো।
সে বলবে, হে আমার রব, কেন আপনি আমাকে অন্ধ অবস্থায় উঠালেন ? অথচ আমিতো ছিলাম দৃষ্টিশক্তিসম্পন্নণ? তিনি বলবেন, অনুরুপভাবে তোমার নিকট আমার আয়াতসমূহ এসেছিল, অত:পর তুমি তা ভুলে গিয়েছিলে এবং সেভাবেই আজ তোমাকে ভুলে যাওয়া হল’ [সূরা তাহা-১২৪-১২৬]।

কুরআন শিক্ষা কোর্সটি কাদের জন্য?

কোরআন পড়া শিখতে আগ্রহী যেকোনো বয়সী মানুষের জন্য।

কোর্সটি করে কি কি শিখবেন?

জটিল নিয়মকানুন থেকে বের হয়ে এসে সহজ নিয়মের মাধ্যমে কোরআন পড়া শেখানো হবে। এবং শিক্ষার্থীদের মধ্যে কোরআন পড়াজনিত সব ধরনের ভয় ও দ্বিধা দূর হবে।
সহজ সাবলীল ভাষায় ব্যাখা করা হবে। আরও যা যা শিখবেন…

  • কেবল মুখস্থ না করিয়ে বিস্তারিত ব্যাখ্যার মাধ্যমে শেখানো হয়।
  • কোর্সটির মাধ্যমে ঘরে বসেই মোবাইল বা কম্পিউটারের মাধ্যমে সহীহভাবে কোরআন পড়া শিখতে পারবেন।
  • অনলাইনেই কোর্সটি কমপ্লিট করবেন এবং সার্টিফিকেট দেওয়া হবে।
  • সম্পূর্ণ কোর্সে ১. ভিডিও, ২. কুইজ, ৩. নোট এবং ৪. অনুশীলন এই বিষয় গুলোর মাধ্যমে শেখানো হবে।

সহজ কুরআন শিক্ষার সুচিপত্র:

৩০ দিনে ফ্রি অনলাইনে কুরআন শিক্ষা কোর্স এর জন্য বিষয়ভিত্তিক অর্জন উপযোগী যোগ্যতা নির্ধারিত রয়েছে নিম্নে কয়েকটি উলেস্নখ করা হলো-

১। সহজভাবে পবিত্র কুরআন শরীফ পড়তে পারার দক্ষতা অর্জন করবে এবং দৈন্দিন জীবনে তা চর্চা করবে ।

২। ইসলাম ধর্মের নিয়ম-কানুন জানা ও মানার জন্য আগ্রহী হয়ে গড়ে উঠবে ।

৩। শিক্ষার্থীরা জীবনের গুণগত মান উন্নয়নের জন্য প্রয়োজনীয় জ্ঞান, দৃষ্টিভঙ্গি ও দক্ষতা অর্জন করবে ।

৪। শিক্ষার্থীদের মাঝে পবিত্র কুরআন শরীফে বর্ণিত বিভিন্ন গুণাবলীর বিকাশ ঘটবে ।

৫। শিক্ষার্থীদের মধ্যে প্রত্যাশিত আচরণ ও ইসলামী মূল্যবোধের বিকাশ ঘটবে।

শিখনফল: কি কি শিখতে পারবেন?

পড়া ও বলাঃ

  • কুরআন মাজীদ-এর পরিচয়, পাঠের গুরুত্ব এবং তিলাওয়াতের ফযীলত বলতে পারবে ।
  • শিক্ষার্থীরা আরবী হরফ দেখে চিনতে ও পড়তে পারবে।
  • শিক্ষার্থীরা নু্ক্তাওয়ালা ও নুক্তা ছাড়া হরফ চিনতে, পড়তে ও পার্থক্য করতে পারবে ।
  • ২৯টি আরবী হরফের উচ্চারণের পার্থক্য বুঝতে এবং সহীহভাবে উচ্চারণ করতে পারবে।
  • মাখরাজওয়ালা হরফ বিশুদ্ধ উচ্চারণে পড়তে পারবে ।
  • যুক্তাক্ষর বিশিষ্ট হরফ চিনতে, বলতে ও পড়তে পারবে ।
  • আরবী হরফের বিভিন্ন রূপ চিনতে ও পড়তে পারবে ।
  • আরবী হরফের মিলিতরুপ চিনতে পারবে ।
  • হরকতের উচ্চারণ করতে পারবে ।
  • হরকতের ব্যবহার করে পড়তে পারবে ।
  • তানভীন উচ্চারণ করতে পারবে।
  • তানভীন ব্যবহার করে পড়তে পারবে।
  • জযমওয়ালা হরফ উচ্চারণ করতে পারবে।
  • জযমের ব্যবহার করে পড়তে পারবে।
  • কলকলার হরফ চিনতে পারবে।
  • কলকলার হরফ সহীহ উচ্চারণে পড়তে পারবে ।
  • তাশ্দীদওয়ালা হরফ চিনতে পারবে ।
  • সহীহ উচ্চারণে তাশদীদযুক্ত শব্দ সঠিকভাবে পড়তে পারবে ।
  • তাশদীদওয়ালা ও তাশদীদ ছাড়া শব্দের মধ্যকার পার্থক্য নির্ণয় করতে পারবে ।
  • ওয়াজিব গুন্নাহ কী তা বলতে পারবে ।
  • গুন্নাহসহ উচ্চারণ করে কুরআন শরীফ তিলাওয়াত করতে পারবে ।
  • মাদ্দ-এর হরফে টেনে পড়তে পারবে ।
  • কখন গুন্নাহ করে পড়তে হয় এবং কখন গুন্নাহ করতে হয় না তা বলতে পারবে ।
  • কোন্ কোন্ হরফ ও শব্দ মোটা এবং কোন্ কোন্ হরফ ও শব্দ চিকন করে পড়তে হয় তা বলতে পারবে ।
  • যথা নিয়মে গোল তা এবং সিক্তা পড়তে পারবে ।
  • ওয়াকফের চিহ্নগুলো কী তা বলতে পারবে ।
  • কুরআন শরীফ তিলাওয়াতকালে সঠিকভাবে ও যথাস্থানে ওয়াকফ করতে পারবে ।
  • মক্কী ও মাদানী সূরা কাকে বলে তা বলতে পারবে ।
  • সূরাতুল ফাতিহাসহ নির্বাচিত ১০টি সূরা মুখস্থ বলতে পারবে ।
  • সূরাতুল ফাতিহাসহ নির্বাচিত ১০টি সূরার বাংলা অর্থ দেখে পড়তে পারবে ।
  • সঠিকভাবে ও সহীহ উচ্চারণে পবিত্র কুরআন শরীফ তিলাওয়াত করতে পারবে ।
  • নিজেদের জানা বিষয়গুলো অন্যদেরকে শিখাতে পারবে ।

লেখার দক্ষতা:

  • আরবী হরফ দেখে ও না দেখে লিখতে পারবে।
  • নু্ক্তাওয়ালা ও নুক্তা ছাড়া হরফ দেখে ও না দেখে লিখতে পারবে।
  • আরবী হরফগুলো সহজভাবে লেখার ৮টি নিয়ম অনুযায়ী লিখতে পারবে।
  • যুক্তাক্ষর বিশিষ্ট হরফ দেখে লিখতে পারবে।
  • হরকত ব্যবহার করে দেখে ও না দেখে লিখতে পারবে।
  • জযমওয়ালা হরফ লিখতে পারবে ।
  • পাঠ্যপুসত্মকে লিখিত কলকলার চার্ট দেখে লিখতে পারবে।
  • পাঠ্যপুসত্মকে লিখিত তাশদীদওয়ালা ও তাশদীদ ছাড়া আরবী শব্দ ব্যবহার করে লিখতে পারবে।
  • পবিত্র কুরআন শরীফের আয়াত দেখে দেখে লিখতে পারবে ।

আরও পড়ুন: শুক্রবারের আমল ও জুমআর দিনের ফজিলত

ট্যাগ: কোরআন শিক্ষা কোর্স, নূরানী পদ্ধতিতে কুরআন শিক্ষা, কুরআন শিক্ষার সহজ পদ্ধতি, বৈজ্ঞানিক পদ্ধতিতে কুরআন শিক্ষা, সহজ কুরআন শিক্ষা
অনলাইনে কুরআন শিক্ষা, সহীহ কুরআন শিক্ষা পদ্ধতি, সহজ বাংলা কোরআন শিক্ষা , আধুনিক পদ্ধতিতে কুরআন শিক্ষা 
কোরআন শিক্ষার সফটওয়্যার, ক্ব-রীয়ানা পদ্ধতিতে কুরআন শিক্ষা বই pdf 

কোন পরামর্শ বা প্রশ্ন থাকলে নিচে কমেন্ট করতে পারেন বা খুব প্রয়োজনে মোবাইল করতে পারেন।
লেখক: আবু জাফর রাজু, পিএইচডি. গবেষক, ইসলামিক স্টাডিজ বিভাগ, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়
মোবাইল: +8801716474676 (হোয়াটসঅ্যাপ); (10am-9pm)
বি:দ্র: লেখাটি কপি না করার জন্য অনুরোধ করছি, তবে পোস্টের লিংক দিলে বৈধ হবে।

লেখাটিতে উপকার পেয়েছেন? আবার পড়তে চান? তাহলে শেয়ার করুন।

5 thoughts on “কুরআন শিক্ষা : ৩০ দিনে ফ্রি অনলাইনে কুরআন শিক্ষা কোর্স”

  1. কোর্সটি কিভাবে করতে হবে বিস্তারিত জানাবেন।
    রেজিস্ট্রেশন কোর্স ফি এবং সময় বিস্তারিত জানতে চাই।

    1. আসসালামু আলাইকুম আমি এখানে পড়তে চাই আমাকে এত ভর্তি করুন দয়া করে আমাকে একসেপ্ট করুন

  2. দৈনন্দিন জীবনে কুরআন শিক্ষা ও নিয়মিত কুরআন তেলাওয়াতের গুরুত্ব অপরিসীম । প্রত্যেক মুসলমান মহান আল্লাহর রহমতের জন্যে কোরআন তেলাওয়াত করে।
    কোরআন তেলাওয়াত শুদ্ধভাবে না হলে উল্টো গুনাহ হয়। তাই আরবি ভাষার কিছু রীতিনীতির জ্ঞান ও শব্দের সঠিক উচ্চারণের মতো বিষয় গুলো জানা জরুরী।
    পবিত্র কোরআন তেলাওয়াতের জন্যে আরবি ভাষার জ্ঞানের পাশাপাশি বিশুদ্ধ উপায় অনুসরণ করা আবশ্যক।
    সকল বয়সের নারী ও পুরুষ আমাদের এই অনলাইনে কুরআন শিক্ষা কোর্স করে সঠিক নিয়মে কুরআন পড়তে পারবেন ইনশাআল্লাহ।

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *