কেরানীগঞ্জের শ্যামল বাংলা রিসোর্ট ও কাশবন ভ্রমণ

কাশবন ও রিসোর্টের জন্য বিখ্যাত হয়ে উঠছে কেরানীগঞ্জ। কেরানীগঞ্জের শ্যামল বাংলা রিসোর্ট ও কাশবন ভ্রমণ দুটোই সেরে ফেলতে পারেন একদিনের ভ্রমণ প্যাকেজ। ছুটির দিনে পরিবার নিয়ে ভ্রমণের জন্য একটি চমৎকার জায়গা। ঢাকা থেকে যাওয়ার জন্য মোহাম্মদপুর হয়ে বসিলা রোডে বসিলা ব্রিজ পার হয়ে কলাতিয়ার দিকে যেতে হাতের বামে উপরে শ্যামল বাংলা রিসোর্ট। আরে রিসোর্ট যেতে আসতেই দু’ধারে দেখবেন অনেক কাশবন। মনে হবে যেন হাতছানি দিয়ে ডাকছে আপনাকে। গ্রামীণ পথ পাড়ি দিয়ে যখন যাবেন শ্যামল বাংলা রিসোর্ট তখন মনে হবে যেন বাংলাদেশ নয় ভিন্ন কোন দেশে এসেছেন।

শ্যামল বাংলা রিসোর্ট আপনার ব্যক্তিগত আক্রমণ অফিসের এজিএম কিংবা কোন অনুষ্ঠান করতে পারেন। হতে পারে সেটা কোন বিবাহের অনুষ্ঠান অথবা কোন জন্মদিনের অনুষ্ঠান অথবা যেকোনো ধরনের মিটিং সেরে ফেলতে পারেন। এখানে ডেইলি অথবা সাপ্তাহিক বেসিসে মিটিং রুম ভাড়া পাওয়া যায়। এখানে খাবারও সুব্যবস্থা আছে। সে ক্ষেত্রে আগে অর্ডার করলেই হবে। তুলনামূলকভাবে খাবারের মান অনেক ভালো। দামও কম। এছাড়াও হালকা খাবার পাওয়া যায়। যেমন কফি চা ফাস্টফুড সহ বিভিন্ন ধরনের স্ন্যাকসের ব্যবস্থা আছে। এছাড়াও সুইমিং পুল, বাচ্চাদের বিভিন্ন রাইডার আছে যেমন, ট্রেন, জাহাজ, চোরকি, দোলনা, স্লিপার ইত্যাদি। হরিণসহ নানা ধরনের পশু পাখির দেখা পাবেন এখানে। যেমন, বাজিগর, পায়রা, কাকাতুয়া ।

সব থেকে ভালো লাগবে আপনি যখন এইসা রিসোর্টের মূল ভবনের ছাদে উঠবেন। সেখান থেকে মনোরম বাংলার দৃশ্য দেখতে পাবেন। সব মিলিয়ে বেশ সুন্দর করে সাজানো-গোছানো এই রিসোর্টটি আপনার ভালই লাগবে বলে বিশ্বাস করি।

যেভাবে আসবেন শ্যামল বাংলা রিসোর্ট

ঢাকার মুহাম্মদপুর বাসস্টেন্ড এর বেড়িবাঁধ পার হয়ে ঘাটারচর হয়ে আটিরবাজার নতুন বাইপাস রোড হয়ে কলাতিয়া রোডে ৩ (তিন) কি.মি. সামনে রাস্তার দক্ষিণে।
গুইটা কৃষ্ণনগর গ্রামে “শ্যামল বাংলা রিসোর্ট” অবস্থিত।

No photo description available.

যারা সোয়ারীঘাট অথবা জিনজিরা থেকে আসবেন তারা আটিবাজার হয়ে কলাতিয়া রোডে ৩ (তিন) কি.মি. সামনে শ্যামল বাংলা রিসোর্ট পাবেন।
গ্রাম বাংলার ভিতর অনেক সুন্দর একটা রিসোর্ট। যোগাযোগ মোবাইল নাম্বার: +8801776508612

লেখাটিতে উপকার পেয়েছেন? আবার পড়তে চান? তাহলে শেয়ার করুন।

Leave a Comment

Your email address will not be published.