সাংবাদিকতায় ভর্তি

সাংবাদিকতায় ভর্তি ও ক্যারিয়ার

যারা বিশ্ববিদ্যালয়ে সাংবাদিকতায় ভর্তি হতে চায় এ লেখাটি মূলত তাদের জন্নেই। বাংলাদেশসহ বিশ্বে সাংবাদিকতার চাহিদা বেড়েই চলেছে।
গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা (Mass Communication & Journalism) বাংলাদেশের বিশ্ববিদ্যালয় গুলোতে এ নামেই সাবজেক্টটি রয়েছে।
এ সাবজেক্টে সাংবাদিকতার বিভিন্ন অংশ ছাড়াও তথ্য প্রযুক্তি, অর্থনীতি, পরিসংখ্যান ইত্যাদি বিষয় পড়ানো হয়।
দেশে সরকারী ও প্রাইভেট বিশ্ববিদ্যালয়ে সাংবাদিকতা পড়াশোনার সুযোগ রয়েছে। বিদেশেও সাংবাদিকতায় উচ্চশিক্ষা লাভ করা যায়।

সাংবাদিকতার চাহিদা

বর্তমানে প্রিন্ট ও ইলেক্ট্রনিক মিডিয়া যেভাবে বেড়ে চলেছে, সেই সাথে এই বিষয়ের চাহিদাও বৃদ্ধি পাচ্ছে। তাছাড়া বর্তমান বিশ্ব পরিস্থিতিতে মিডিয়া একটি উল্লেখযোগ্য ভূমিকা পালন করছে। যে কারণে ছাত্র-ছাত্রীদের মাঝে এর চাহিদা বৃদ্ধিপাচ্ছে।

সাংবাদিকতার ক্ষেত্র

প্রিন্ট মিডিয়া (পত্রিকা, ম্যাগাজিন, সাময়িকী ইত্যাদি) : সম্পাদকীয় বিভাগ, প্রশাসনিক বিভাগ, বার্তা বিভাগ, রিপোর্টিং বিভাগ, প্রুফ এডিটিং বিভাগ, ফটোগ্রাফি বিভাগ, অলংকরণ বিভাগ, বিজ্ঞাপন বিভাগ, প্রচার বিভাগ, রেফারেন্স লাইব্রেরি, প্রিন্টিং/ছাপা বিভাগ।

ফ্রি অনলাইন তথ্য সেবা
বিষয়:
বিদেশে উচ্চশিক্ষা ও স্কলারশিপ-২০২১

অনলাইন রেজিট্রেশন:
বিদেশে উচ্চশিক্ষা স্কলারশিপ বিষয়ক ফ্রি অনলাইন সেমিনারের জন্য রেজিস্ট্রেশন করুন নিচের লিংকে।
রেজিট্রেশন লিংক: https://shebaru.com/seminar/
অথবা যোগাযোগ করুন এখানে…

ফেসবুক গ্রূপ এ যুক্ত হোন:
স্টুডেন্ট ভিসা সম্পর্কে যোগাযোগ করতে “স্টূডেন্ট ভিসা হেল্পলাইন” ফেসবুক গ্রুপ এ জয়েন করুন।
এই গ্রুপে পাবেন সকল দেশের স্কলারশিপ তথ্য। আবার মতামত ও প্রশ্ন করতে পারবেন যে কোন সময়।
গ্রূপ লিংক: www.facebook.com/groups/studentvisahelpline

বিষয়ভিত্তিক অবস্থান

ক্রমবর্ধমান চাহিদার পরিপ্রেক্ষিতে এই বিষয়ের বর্তমান অবস্থান কলা ও মানবিক অনুষদে উপরের দিকে।

কোথায় পড়ানো হয়?

সাংবাদিকতা বিষয়টির ব্যাপক চাহিদা থাকলেও এটি মূলত ঢাকা, চট্টগ্রাম ও রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ানো হয়। এছাড়াও কিছু প্রাইভেট বিশ্ববিদ্যালয়েও এই বিষয়টি পড়ানো হচ্ছে।

চাকুরি সুবিধা কেমন?

এই বিভাগের সবচেয়ে বড় সুবিদা হলো শিক্ষার্থীরা ছাত্র জীবনেই চাকুরি পেয়ে যায় এবং বিশাল অভিজ্ঞতা অর্জন করে।
সাংবাদিকতার শিক্ষার্থীরা বিসিএস ক্যাডার হয়া ছাড়াও বিভিন্ন প্রিন্ট ও ইলেক্ট্রনিক মিডিয়ার সাংবাদিক হিসেবে
এবং বিভিন্ন প্রাইভেট ফার্ম ও এনজিও গুলোতে চাকুরি লাভ করে থাকে। এখানে প্রথমদিকে হয়তো আয়ের পরিমাণটা কম। তবে অভিজ্ঞতা অর্জনের সাথে সাথে পাল্লা দিয়ে বাড়তে থাকে আয় রোজগার। দেশে আপনার অভিজ্ঞতা অনুযায়ী সম্মানী ১০-৫০ হাজার টাকা হয়ে থাকে। তবে ইলেকট্রনিক মিডিয়াতে এ অঙ্ক বাড়তে পারে। আর যদি সাংবাদিকতার মাধ্যমে কোনো আন্তর্জাতিক সংস্থার সাংবাদিক হওয়া যায় তাহলে সম্মানী এর দ্বিগুণও হতে পারে।

অনলাইন মিডিয়ায় সাংবাদিকতা

বর্তমানে ইন্টারনেটের কল্যাণে আরেকটি ক্ষেত্রে কাজের সুযোগ সৃষ্টি হয়েছে। সেটি হলো- অনলাইন মিডিয়া।
সম্পাদকীয় বিভাগ, প্রশাসনিক বিভাগ, বার্তা বিভাগ, রিপোর্টিং বিভাগ, প্রুফ এডিটিং বিভাগ, ফটোগ্রাফি বিভাগ, অলংকরণ বিভাগ, বিজ্ঞাপন বিভাগ, রেফারেন্স লাইব্রেরি। এছাড়াও এর চেয়ে কমবেশি বিভাগ থাকতে পারে। এটি সম্পূর্ণ নির্ভর করবে ঐ প্রতিষ্ঠানের উপর।

সাংবাদিকতা পড়তে হলে কি কি গুন থাকা চাই?

  • ১. সিদ্ধান্ত
  • ২. সততা
  • ৩. ব্যক্তিত্ব
  • ৪. ব্যবহার
  • ৫. সাহসিকতা
  • ৬. বস্তুনিষ্ঠতা
  • ৭. অধ্যবসায়
  • ৮. নিয়মানুবর্তিতা ও যোগাযোগ
  • ৯. দায়বদ্ধতা
  • ১০. বিচক্ষণতা

কোথায় করবেন সাংবাদিকতা কোর্স?

যাদের পক্ষে এখন আর সাংবাদিকতায় স্নাতক করা সম্ভব নয়, তারাও করে নিতে পারেন ৬মাস, একবছর বা ২ বছর মেয়াদী স্নাতকোত্তর বা ডিপ্লোমা অথবা সার্টিফিকেট কোর্স। দেশের সরকারি বে-সরাকারি বহু প্রতিষ্ঠানে এ ধরণের কোর্সকরার সুযোগ রয়েছে। বাংলাদেশ তথ্য অধিদপ্তর, প্রেস ইনস্টিটিউট বা প্রেস কাউন্সিলসহ প্রথম আলো, নয়দিগন্তসহ অনেক বেসরকারি ইলেক্ট্রিক ও প্রিন্ট মিডিয়া এখন এসকল কোর্স চালু করেছে। ঢাবি, রাবি’সহ দেশের কয়েকটি পাবলিক ও প্রাইভেট বিশ্ববিদ্যালয় সাংবাদিকতায় স্নাতক সম্মান ও স্নাতকোত্তর কোর্স রয়েছে। তাছাড়া রয়েছে ১ ও ২ বছর মেয়াদী ডিপ্লোমা কোর্স। কোর্স করে আপনি বিভিন্ন পত্রিকায় আপনার লেখা পাঠাতে থাকুন ও সেই সঙ্গে আপনার বায়োডাটাও পাঠাতে থাকুন।ভর্তির যোগ্যতাঃ স্নাতক পর্যায়ে ভর্তি হতে যে কোন বিভাগ থেকে এইচএসসি পাশ হতে হবে। আর স্নাতকোত্তর বা ডিপ্লোমা কোর্সে ভর্তি হতে স্নাতক পাশ হতে হবে।

বিজ্ঞাপন: সব ধরনের ভিসা এক ঠিকানায় পেতে যোগাযোগ করুন সেবারু হটলাইনে!
সেবার এরিয়া জানতে ক্লিক করুন:- ১. বিদেশে উচ্চশিক্ষা ২. বিদেশে কাজের ভিসা ৩. বিদেশে মেডিকেল ভিসা
স্টুডেন্ট ভিসা:- মালয়েশিয়া, কানাডা, অস্ট্রেলিয়ায়, চায়না, ভারত, লিথুনিয়া, ফিনল্যান্ড, জার্মানী, পোল্যান্ডসহ বিভিন্ন দেশের স্টুডেন্ট ভিসা।
জব ভিসা: সৈদিআরব, কাতার, দুবাই, রোমানিয়া, আলবেনিয়া, রাশিয়া, সার্বিয়ায় কাজেরসহ আরও কয়েকটি দেশের ভিসা করা হয়।
চিকিংসা ভিসা: ভারত, থাইল্যান্ড, সিঙ্গাপুরসহ বিভিন্ন দেশে চিকিৎসা ভিসার জন্য আজই যোগাযোগ করুন।
যোগাযোগ: মোবাইল ও হোয়াটসঅ্যাপ: ০১৭৯০৫৫০০০০ (সকাল ১০টা থেকে রাত ৯ টার মধ্যে কল করুন)
ইউটিউব।। ফেসবুক।। কাজের ভিসা ফেসবুক গ্রুপ।। স্টুডেন্ট ভিসা ফেসবুক গ্রুপ।।

সাংবাদিকতায় ভর্তি বিষয়ক কনসালটেন্সি সেবা:

সেবারু এ্যাডমিশন এইড বাংলাদেশের প্রাইভেট ইউনিভার্সিটি গুলোতে (ইউজিসির প্রাইভেট বিশ্ববিদ্যালয়ের তালিকা) স্টুডেন্টের যোগ্যতা, অর্থনৈতিক সামর্থ্য, উদ্দেশ্য, ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা অনুযায়ী কোর্স ও ইউনিভার্সিটি সিলেক্ট করে দেয়। স্টুডেন্ট ভর্তির পূর্বে বিশ্ববিদ্যালয়ের ব্যায় ও জীবন যাত্রা সম্পর্কে বিস্তারিত ধারনা ও তথ্য দিয়ে থাকে। লেখা পড়া শেষ হওয়া পযর্ন্ত নানা ধরনের সেবা প্রদান করা হয়, এতে করে ভর্তি হওয়ার পর স্টুডেন্টকে কোনো ভোগান্তিতে পড়তে হয় না।


স্টুডেন্ট ভিসা বিষয়ে প্রশ্ন থাকলে নিচে কমেন্ট করুন। সেবারু ডটকম (shebaru.com) থেকে খুব দ্রুত উত্তর দেওয়া হবে ইনশাআল্লাহ।
ফ্রি রেজিস্ট্রেশন করুন: স্টুডেন্ট ভিসা বিষয়ক ট্রেনিং।। স্টুডেন্ট ভিসা ফেসবুক গ্রুপ।। ইউটিউব চ্যানেল।। ভিসার জন্য যোগাযোগ
মো+হোয়াটসঅ্যাপ: +8801790550000 লেখাটি সর্বশেষ আপডেট করা হয়েছে: ১৮ সেপ্টেম্বর ২০২১